বিয়ানীবাজার সংবাদ

বিয়ানীবাজারে বেড়েছে মে’য়েদের কসমেটিকস প্রসাধনের দাম!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মে’য়েদের এখন কসমেটিকস প্রসাধনসামগ্রীর দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ১০ থেকে ৮০ শতাংশ। আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্যবৃদ্ধির কারণে দেশের বাজারেও এর প্রভাব পড়েছে। বিয়ানীবাজার উপজে’লার কসমেটিকসের দোকানে এসব দাম বাড়ার চিত্র দেখা যায়।

শীতের মৌসুম শুরু হতে না হতেই মে’য়েদের ময়েশ্চারাইজিং বডি লোশন, ক্রিম, চুলের তেলসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে ১০ থেকে ৮০ শতাংশ।

অনুসন্ধানে দেখা যায় এখন এক ডজন যে রঙিন কাঁচের চুড়ি ৪৫০ টাকা তা দেড় মাস আগে একই কাঁচের চুড়ি ২৫০ টাকা ছিল। দেড় মাসের ব্যবধানে ৮০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে দাম। ১০০ গ্রামের যে ডাব সাবান ১২৫ টাকায় ছিল , সেই ডাব সাবান এখন ১৪০ টাকা কিনতে হচ্ছে ক্রেতাদের। যে টিপের পাতা ৩০ টাকায় বিক্রি হয়েছে তার এখন ৪০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ২০০ মিলি পন্ডস্ ট্রিপল ভিটামিন ময়েশ্চারাইজিং বডি লোশন আগে ছিল ২০০ থেকে ২২০ টাকা। এখন সেই লোশন ২৪০ টাকা। মুখের ফেয়ার এন্ড লাভ্লি যেটি ৬০ টাকা ছিল তা এখন ৯০ টাকা এবং যেটি ১২০ টাকা ছিল তা এখন ১৯৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে। । লাক্স সাবান ছিল ৫০ টাকা, এখন ৭৫ টাকা, গ্লো অ্যান্ড লাভলি ফেস ওয়াশ ১৫০ থেকে বেড়ে ১৬০ টাকা, কুমা’রিকা হেয়ার ফল কন্ট্রোল ৩০০ মিলি ২৫০ থেকে ৩০ টাকা বেড়ে ২৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বেশ কয়েকটি কসমেটিকস দোকানের ব্যবসায়ী বলেন গত দেড় মাস থেকে হঠাৎ করেই বৃদ্ধি পেয়েছে এসব প্রসাধনের দাম। প্রায় প্রত্যেকটি প্রোডাক্টের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে ইউনিলিভা’রের বেশ কিছু প্রসাধন রয়েছে যেগুলোর চাহিদা বেশী। এগুলোর দাম বেশী বৃদ্ধি পেয়েছে।

এসব কসমেটিকস প্রসাধন সাধারণত নারীরা ব্যবহার করেন। স্কুল কলেজ পড়ুয়া তরুণ তরুণী কিংবা যারা হোস্টেলে থাকেন মাসের টাকা হিসেব করেই থাকে তাদের কাছে। হঠাৎ করে এসব প্রসাধনের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় এসব প্রসাধন কিনতে টাকার এখন সংকুলান হচ্ছে না তাদের। এদিকে ব্যবসায়ীরা বলছেন এসব প্রসাধনের দাম আরও বৃদ্ধি পেতে পারে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!