হবিগঞ্জ

হবিগঞ্জ শহরে ফের সক্রিয় মোটর সাইকেল চো’র সিন্ডিকেট

আখলাছ আহমেদ প্রিয়ঃ হবিগঞ্জ শহরে ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে মোটর সাইকেল চো’র সিন্ডিকেট চক্র। গত ১ বছরে জে’লা প্রশাসকের কার্যালয় ও জে’লা সদর হাসপাতাল এলাকাসহ শহরের বিভিন্ন এলাকা থেকে সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষের প্রায় অর্ধশতাধিক মোটর সাইকেল চু’রির ঘটনা ঘটেছে। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ওই সিন্ডিকেট চক্রের কোন সদস্যকে সনাক্ত করতে পারেনি পু’লিশ। এতে একদিকে মোটর সাইকেল চালকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে আতংক। অন্যদিকে চো’রাইকৃত সাইকেল উ’দ্ধারে প্রশাসনের তৎপরতা নিয়েও দেখা দিয়েছে প্রশ্ন।

এদিকে, সর্বশেষ জে’লা প্রশাসক কার্যালয়ের ভিতর থেকে হবিগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি রাসেল চৌধুরীর মোটর সাইকেল চু’রির ১০ দিন অ’তিবাহিত হলেও পু’লিশ এখনো উ’দ্ধার করতে পারেনি। যদিও সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করে বিভিন্ন এলাকায় অ’ভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে সদর মডেল থা’না পু’লিশ।

জানা যায়, হবিগঞ্জ শহরের প্রা’ণকেন্দ্র জে’লা সদর হাসপাতাল এলাকা ও প্রশাসনের নাকের ডগায় অবস্থিত জে’লা প্রশাসকের কার্যালয়। এসব এলাকা থেকে সাম্প্রতিক সময়ে মাঝে মাঝে মোটর সাইকেল চু’রি করে নিয়ে যাচ্ছে একটি সাইকেল চো’র সিন্ডিকেট চক্র। শুধু তাই নয়, শহরের বিভিন্ন এলাকায় চক্রটি একে অ’পরের সহযোগিতায় সাইকেল চু’রি অব্যাহত রেখেছে। গত ২ আগষ্ট রাত সাড়ে ৯ টায় শহরের ২নং পুল এলাকা থেকে হবিগঞ্জ সমাচারের স্টাফ রিপোর্টার সজল খানের সুজুকি জিক্সার এবিএস মোটর সাইকেলটি চু’রি করে নিয়ে যায় সিন্ডিকেট চক্রটি। এরপর ২০ সেপ্টেম্বর রাত ১০ টায় সুলতান মাহমুদপুর এলাকা থেকে মোঃ ফরহাদ মিয়া নামে এক যুবকের সুজুকি জিক্সার, সম্প্রতি মশাজান বাজার থেকে তেঘরিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আনু মিয়ার সুজুকি জিক্সার ও হবিগঞ্জ শহর থেকে মশাজান গ্রামের জয়নাল আবেদীন জালালের একটি মোটর সাইকেল চু’রি হয়। তাছাড়া সর্বশেষ গত ১৩ নভেম্বর জে’লা প্রশাসক কার্যালয়ের ভিতর থেকে হবিগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি ও দৈনিক হবিগঞ্জ সমাচারের ভা’রপ্রাপ্ত সভাপতি রাসেল চৌধুরীর নীল রংয়ের পালসার (হবিগঞ্জ ল- ১১. ০৬৭৭) মোটর সাইকেলটি চুর করে নিয়ে যায় সিন্ডিকেট চক্রটি। তবে পু’লিশ এখন পর্যন্ত চো’রাইকৃত এসব সাইকেলের একটিও উ’দ্ধার করতে পারেনি। গত ১ বছরের শহর থেকে সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধিদের প্রায় অর্ধশতাধিক মোটর সাইকেল চু’রি হয়েছে বলে ধারণা করছেন শহরবাসী।

এদিকে, সাইকেল চু’রির ঘটনায় এ পর্যন্ত থা’নায় কয়টি জিডি হয়েছে জানতে চাইলে সে তথ্য দিতে পারেনি পু’লিশ। তবে ইদানিং সময়ে ৫/৭টি সাইকেল চু’রির ঘটনা ঘটেছে বলে পু’লিশ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

তাছাড়া এর আগে ২০২১ সালে শহরে মোটর সাইকেল চু’রির হিড়িক পড়ে। এতে অনেক জনপ্রতিনিধিসহ অনেকের সাইকেল চু’রি করে নিয়ে যায় সিন্ডিকেট চক্রটি। এর মধ্যে ২০২১ সালের ১১ জানুয়ারী শহরতলীর তেঘরিয়া এলাকা থেকে সাংবাদিক সাইফুর রহমান তারেকের ডিসকভা’র (হবিগঞ্জ-হ-১১-৫৪২০) চু’রি করে নিয়ে যায় চক্রটি। এর পর ৩ ফেব্রæয়ারী হবিগঞ্জ ডায়াবেটিস হাসপাতাল এলাকার মাহমুদাবাদ থেকে ২ দুটি মোটর সাইকেল চু’রি হয়। ২৮ এপ্রিল ২০২১ হবিগঞ্জ শহরের নতুন বাস টার্মিনাল এলাকার হাসি-খুশি শো-রুমের সামন থেকে দিনে দুপুরে মোটর সাইকেল চু’রি করে নিয়ে যায় দূর্বৃত্তরা। তাছাড়া জে’লা প্রশাসক কার্যালয়ের ভিতর থেকে হবিগঞ্জ সদর উপজে’লা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান আউয়ালের বাজাজ মোটর সাইকেল চু’রি করে ওই সিন্ডিকেট চক্রটি। এসব ঘটনায় সদর মডেল থা’নায় প্রত্যেকেই সাধারণ ডায়েরী করেন। প্রশাসনের নাকের ডগায় দিন দিন মোটর সাইকেল চু’রি বৃদ্ধি পাওয়ায় চালকদের মধ্যে আতং বিরাজ করছে। শহরের মোটর সাইকেল চু’রি নিয়ন্ত্রনে পু’লিশের তৎপরতা জো’রদার করণের দাবী সচেতন মহলের।

শহরের ২নং এলাকার সাংবাদিক সজল খান বলেন, ‘গত ২ আগষ্ট রাত সাড়ে ৯ টায় বাসার বারান্দা থেকে আমা’র সুজুকি মোটর সাইকেলটি চু’রি হয়। এ বিষয়ে আমি পরের দিন সদর থা’নায় জিডি করেছি। তবে এখন পর্যন্ত সাইকেলটি উ’দ্ধার হয়নি’।

তেঘরিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আনু মিয়া বলেন, ‘মশাজান বাজারে সাইকেলটি রেখে প্রয়োজনীয় কাজ করি। একটু পরে এসে দেখি সাইকেলটি নেই। এ ব্যাপারে আমি সদর মডেল থা’নায় জিডি করেছি’।

হবিগঞ্জ সদর উপজে’লা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান মোঃ মাহবুবুর রহমান আউয়াল বলেন, ‘শহরের বিভিন্ন এলাকায় সাইকেল চো’র চক্রের একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট চক্র গড়ে উঠেছে। ধারণা হচ্ছে, চক্রটি একে অ’পরের সহযোগিতায় মোটর সাইকেল পা’কিং এলাকায় পূর্বেই অবস্থান করে। যে কারনে খুবই সহ’জেই তারা সাইকেল চু’রি করে নিয়ে যায়। জে’লা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে আমা’র সাইকেলটি চু’রি হলে আমি থা’নায় জিডি করি। কিন্তু এখন পর্যন্ত পু’লিশ সাইকেলটি উ’দ্ধার পারেনি’।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সদর থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) গো’লাম ম’র্তুজা বলেন, ‘মোটরসাইকেল চু’রি রোধে তৎপর রয়েছে পু’লিশ। সাইকেল চু’রির ঘটনায় শহরের বিভিন্ন এলাকায় সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। চো’রদের সনাক্ত করতে এবং সাইকেল উ’দ্ধারে বিভিন্ন জায়গায় অ’ভিযান পরিচালনার পাশাপাশি সাদা পোষাকে বিভিন্ন স্পটে টহল দিচ্ছে পু’লিশ।’ সম্প্রতি শহরে সাইকেল চু’রির ঘটনায় কতটা জিডি হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ ইদানিং ৫/৭ টি সাইকেল চু’রি হয়েছে। এর মধ্যে ২টি উ’দ্ধার করা হয়েছে’।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!